মেনু নির্বাচন করুন

মেলান্দহ সেতু

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় বাঙ্গালী নদীর উপর মেলান্দহ সেতু চলাচলের জন্য আজ বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক ভাবে চালু করা হচ্ছে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এর উদ্বোধন করবেন। সেতু নির্মাণ এবং সংযোগ সড়কের কাজ ইতিমধ্যে সমাপ্ত করে উদ্বোধনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। স্বপ্নের সেতু নির্মাণ হওয়ায় লাখো মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে।

 

গাইবান্ধার সাঘাটা, বোনারপাড়া, জুমারবাড়ী-সোনাতলা সড়কে বাঙ্গালী নদীর উপর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অধীনে মেলান্দহ সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। নদীর গতিপথ অনুযায়ী ২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৬০ মিঃ অপরটি ৩১ মিঃ দৈর্ঘ্য ও ৯,৫০ মিঃ প্রস্থ এবং ৭ স্প্যান ৩৬.৬০ মিঃ ওয়েল ও পাইল ফাউন্ডেশন-এর উপর পিসি গার্ডার পাশাপাশি ২ টি মেলান্দহ সেতু নির্মাণ করা হয় ।

 

সেতু নির্মাণের ফলে সাঘাটা-ফুলছড়ি ও সোনাতলা তিন উপজেলার মানুষের শত বছরের দুর্ভোগ এখন লাঘব এবং দু’অঞ্চলের মানুষের মধ্যে সেতু বন্ধনের রচনা হবে। ভৌগোলিক দিক থেকে সাঘাটা-ফুলছড়ি ও বগুড়া জেলার সোনাতলা-সারিয়াকান্দি উপজেলা পাশাপাশি অবস্থিত হলেও সাঘাট-সোনাতলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত বাঙ্গালী নদীটি এ দু’উপজেলার মানুষকে আলাদা করে রেখে ছিল শত বছর ধরে। এ দু’উপজেলার মানুষের মধ্যে যোগাযোগের জন্য বিকল্প ভরসা ছিল নৌকার খেয়া।

 

খেয়া পারাপার হতে গিয়ে দীর্ঘ সময় চরম দুর্ভোগ পোহাতে হতো জন সাধারণকে। অনেক সময় এর বিকল্প পথ গাইবান্ধা-পলাশবাড়ি -গোবিন্দগঞ্জ হয়ে যাতায়াত করতে হতো।

 

যাত্রী সাধারণকে পড়তে হতো দুর্ভোগের শিকারে। তেমনি গুণতে হতো অতিরিক্ত পরিবহন খরচ।সেতুটির নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হওয়ার ফলে কয়েক লাখ মানুষের শত শত বছরের  প্রাণের দাবি পূরণ হয়েছে। নদীর দু’পাড়ের মানুষ ছাড়াও দূর-দূরান্ত থেকে সর্বস্তরের অসংখ্য মানুষ প্রতি দিন সেতুটি দেখতে এসে  এখন আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন।

Share with :

Facebook Twitter